সোমবার, ২৮ নভেম্বর ২০২২
 
Chahida News

প্রচ্ছদ হাওরাঞ্চল অষ্টগ্রাম, মিঠামইন ও ইটনার অটোচালকদের মানবেতর জীবন

অষ্টগ্রাম, মিঠামইন ও ইটনার অটোচালকদের মানবেতর জীবন

মন্তোষ চক্রবর্তী, বিশেষ প্রতিবেদক | ১০:৪৯ পূর্বাহ্ন, ১০ জুলাই, ২০২১

1625892598.jpg

মন্তোষ চক্রবর্তী, বিশেষ প্রতিবেদক: কিশোরগঞ্জের অষ্টগ্রাম, মিঠামইন ও ইটনা তিনটি হাওড় উপজেলার প্রায় সাড়ে ছয় হাজার অটোরিকশা চালক মানবেতর দিনাতিপাত করছেন বলে জানা গেছে। 

করোনা পরিস্থিতিতে লকডাউনের কারণে অটো বন্ধ থাকায় এই পরিস্থিতি বলে একাধিক অটোরিকশা চালক জানান।

সরেজমিন বৃহস্পতিবার বিকালে অষ্টগ্রামের বড় বাজারে দেখা যায়, একজন যাত্রী নিয়ে একটি অটোরিকশা যাচ্ছে। লকডাউনে অটোরিকশা চালাচ্ছে কেন- এমন প্রশ্নের জবাবে সদর ইউনিয়নের আলম দিঘীরপাড়ের অটোরিকশা চালক বাদশা মিয়া (৩৫) জানান, 'লকডাউনে সব কিছু বন্ধ হলেও পেট তো আর বন্ধ করা যায় না, পেটের ক্ষুধায় অটোরিকশা নিয়ে বাইর হইছি। আটজনের সংসারের খাবার আর এনজিওর ঋণের কিস্তি পরিশোধ করতে অটোরিকশা নিয়া বাইর হইছিলাম। কিন্তু সারাদিনে মাত্র ৮০-৯০ টাকা রোজি হইছে।'

এ ব্যাপারে ইটনা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নাফিসা আক্তার জানান, এই উপজেলার ৯টি ইউনিয়নে প্রায় ৮০০-৯০০ অটোরিকশা চালক রয়েছেন। সেগুলোকে যতটুকু পারছেন সহযোগিতা করছেন।

জানা যায়, অষ্টগ্রাম, ইটনা ও মিঠামইন- এই তিন উপজেলার অটোরিকশা সংখ্যা প্রায় সাড়ে ছয় হাজার। এর মধ্যে অষ্টগ্রামের প্রায় আড়াই হাজার অটোরিকশা রয়েছে। লকডাউনের কারণে অটোরিকশা চালকরা বেকার হয়ে যাওয়ায় সংসার আর এনজিওর ঋণের কিস্তি পরিশোধ করতে হিমশিম খেতে হচ্ছে। এ বিষয়ে অষ্টগ্রাম উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রফিকুল আলম জানান, বৃহস্পতিবার ১২ অটোরিকশা চালককে ৫০০ টাকা করে দেওয়া হয়েছে এবং পর্যায়ক্রমে বাকিদেরও দেওয়া হবে। বিভিন্ন ইউনিয়নের চেয়ারম্যানদের বলা হয়েছে, তাদের সাহায্য করার জন্য।

Post Your Comment

সম্পাদক: গোলাম রসূল, উপদেষ্টা সম্পাদক: কুদ্দুস আফ্রাদ ও ইব্রাহিম খলিল খোকন, নির্বাহী সম্পাদক: এস. এম. ফরহাদ
বার্তাকক্ষ: 01911214995, E-mail: info@vatirrani.com
Developed by CHAHIDA.COM